জগন্নাথপুর টাইমসমঙ্গলবার , ৯ মে ২০২৩, ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. খেলা
  3. গ্রেট ব্রিটেন
  4. ধর্ম
  5. প্রবাসীর কথা
  6. বাংলাদেশ
  7. বিনোদন
  8. বিশ্ব
  9. মতামত
  10. রাজনীতি
  11. ল এন্ড ইমিগ্রেশন
  12. লিড নিউজ
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সাহিত্য
  15. সিলেট বিভাগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অধ্যাপক নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনের শোক

Jagannathpur Times BD
মে ৯, ২০২৩ ৫:২১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঢাকা, ০৯ মে ২০২৩:

প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ, বাংলাদেশের প্রথম পরিকল্পনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান অধ্যাপক নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, এমপি।

এক শোকবার্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন মরহুম নুরুল ইসলামের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

শোক বার্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, ‘প্রথিতযশা ও দূরদর্শী অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক নুরুল ইসলাম বাংলাদেশের জনগণের কল্যাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে গেছেন। যুক্তরাষ্ট্রে থেকেও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে বিশ্বজনমত গঠনে তাঁর অসাধারণ ভূমিকা ছিল। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অর্থনীতিবিদ নুরুল ইসলামের মেধার মূল্যায়ন করে তাঁকে বাংলাদেশের প্রথম পরিকল্পনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান নিযুক্ত করেছিলেন। অধ্যাপক নুরুল ইসলামের অবদান জাতি শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে।’

উল্লেখ্য প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ নুরুল ইসলাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ উপদেষ্টা ও আস্থাভাজনদের একজন।
বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়ার পাশাপাশি তিনি পরিকল্পনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান হিসেবে ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত যুদ্ধ পরবর্তী অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে নেতৃত্বের ভূমিকার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

পাকিস্তান সরকারের কাছে আওয়ামী লীগের পেশ করা ছয় দফার তিনি ছিলেন প্রাথমিক প্রণেতাদের একজন।

১৯৬১ সালে ইসলাম, রেহমান সোবহান এবং হাবিবুর রহমান মিলে পশ্চিম ও পূর্ব পাকিস্তানের মধ্যে অর্থনৈতিক বৈষম্যের ওপর একটি সেমিনারের আয়োজন করেন, যা স্বাধীনতার জন্য সমর্থন যোগাতে সহায়ক হয়েছিল।

নুরুল ইসলাম ১৯৬০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে যোগদান করেন।

১৯৬৫ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরি ছেড়ে দিয়ে তিনি পাকিস্তান ইনস্টিটিউট অফ ডেভেলপমেন্ট ইকোনমিক্স (পরবর্তীতে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ)-এর পরিচালক পদে যোগ দেন। ১৯৬৯ সালে তিনি ঢাকায় ফিরে আসেন।
ইসলাম লন্ডন স্কুল অফ ইকোনমিক্স এবং কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে নাফিল্ড ফাউন্ডেশনের ফেলো ছিলেন।

তিনি নেদারল্যান্ড স্কুল অফ ইকোনমিক্সে রকফেলার ফেলো হিসেবেও কাজ করেছেন এবং অক্সফোর্ডের সেন্ট অ্যান্টোনি’স কলেজের একজন ফেলো ছিলেন।
ইসলাম জাতিসংঘ খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) সহকারী মহাপরিচালক এবং অর্থনৈতিক ও সামাজিক নীতি বিভাগের দায়িত্ব পালন করেন।
চট্টগ্রামে ইসলামের বেড়ে ওঠা। তিনি চট্টগ্রাম কলেজ থেকে আইএ সম্পন্ন করেন।
প্রেসিডেন্সি কলেজ, কলকাতা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়ার পর, তিনি ১৯৫৫ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।
তাত্ত্বিক ও ফলিত উন্নয়ন অর্থনীতিতে অবদানের জন্য তিনি বাংলাদেশ ব্যাংক পুরস্কার (২০০৯) লাভ করেন।
তিনি ২৯টি বই লিখেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।