জগন্নাথপুর টাইমসশনিবার , ২৪ জুন ২০২৩, ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. খেলা
  3. গ্রেট ব্রিটেন
  4. ধর্ম
  5. প্রবাসীর কথা
  6. বাংলাদেশ
  7. বিনোদন
  8. বিশ্ব
  9. মতামত
  10. রাজনীতি
  11. ল এন্ড ইমিগ্রেশন
  12. লিড নিউজ
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সাহিত্য
  15. সিলেট বিভাগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ছাতকে রেদ্বওয়ান আহমদ আহমদ সংবর্ধিত

Jagannathpur Times BD
জুন ২৪, ২০২৩ ৭:৩৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার বাউর গ্রামের আলোকিত সন্তান রেদ্বওয়ান
আহমদ প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ’ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে’ ভর্তী পরিক্ষায়
মেধা তালিকায় স্থান পাওয়ায় সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ইয়াছিন বাগ ফাউন্ডেশন এর উদ্দ্যোগে এ
সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।
ইয়াছিন বাগ ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্টাতা ও সভাপতি এডভোকেট
মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত সংবর্ধনা সভায়
প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও শিক্ষানুরাগী
আফজাল হোসেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, গোবিন্দগঞ্জ আব্দুল হক স্মৃতি ডিগ্রি
কলেজের সহকারী অধ্যাপক শাহ সফিকুল আলম মতি, খুরমা দক্ষিন
ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান তালুকদার
জাহাঙ্গীর।
সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন ’ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে’ ভর্তী পরিক্ষায়
মেধা তালিকায় স্থান পাওয়া বাউর গ্রামের আলোকিত সন্তান রেদ্বওয়ান
আহমদ। সংবর্ধিত হয়ে উচ্ছসিত হয়েছেন রেদ্বওয়ান আহমদ, সেই
সাথে ইয়াছিন বাগ ফাউন্ডেশন কতৃপক্ষকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ
করেছেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আফজাল হোসেন বলেন, প্রাচ্যের অক্সফোর্ড
খ্যাত ’ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে’ ভর্তী পরিক্ষায় মেধা তালিকায় স্থান
পেয়েছে রেদ্বওয়ান আহমদ। এই কৃতি শিক্ষার্থীর জন্য পরিবার, বন্ধু
বান্ধব এমনকি গোটা সমাজ গর্বিত হয়েছে। রেদ্বওয়ান আহমদ এর মত
কৃতী শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনে ভভিষৎ।
তিনি আরো বলেন, দেশ যদি উন্নত হয়, সমৃদ্ধ হয় তাহলে কৃতিদের
সাফল্য, মা-বাবার কষ্ট সফল হবে। ’ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে’ ভর্তী পরিক্ষায়
মেধা তালিকায় স্থান পেয়ে মা-বাবার মুখ যেমন উজ্জ্বল করেছে রেদ্বওয়ান
আহমদ , তেমনি দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার ক্ষেত্রে ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ
গড়তে কৃতি শিক্ষার্থীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে এডভোকেট সাহাব উদ্দিন বলেন, সবার মাঝে অমিত
সম্ভাবনা রয়েছে। নিজেদের সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে এগিয়ে
যেতে হবে। মনে রাখতে হবে, জীবনের যে কোনো পর্যায়ে সাফল্য
আসতে পারে। প্রত্যেক কৃতিকে আগামী দিনে নিজের দেশ মাতৃকার
কথা ভাবতে হবে। কিভাবে দেশের গৌরব আরো বাড়ানো যায়, সেই
চেষ্টা করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, এই অঞ্চলে শিক্ষা ও সংস্কৃতি সমান ভাবে এগিয়ে
চলেছে । যা একটি অঞ্চলের ভিত্তি ঠিক করে দেয়। আজকের এই কৃতিরা
ভবিষৎতে যেখানেই যাক না কেন, তাদের শিকড় বিচ্ছিন্ন হলে চলবেনা।
আমরা অন্যের কাছে অনুপ্রেরণা হবো।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।