জগন্নাথপুর টাইমসরবিবার , ২০ আগস্ট ২০২৩, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. খেলা
  3. গ্রেট ব্রিটেন
  4. ধর্ম
  5. প্রবাসীর কথা
  6. বাংলাদেশ
  7. বিনোদন
  8. বিশ্ব
  9. মতামত
  10. রাজনীতি
  11. ল এন্ড ইমিগ্রেশন
  12. লিড নিউজ
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সাহিত্য
  15. সিলেট বিভাগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শিক্ষাবিদ আবদুল করিমের ১৫৯ তম জন্মদিন আজ- আবুল ফতেহ ফাত্তাহ

Jagannathpur Times BD
আগস্ট ২০, ২০২৩ ১:১৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

শিক্ষাবিদ আবদুল করিমের ১৫৯ তম জন্মদিন আজ-
আবুল ফতেহ ফাত্তাহ

::

মৌলবি আবদুল করিম (জন্ম ২০আগস্ট, ১৮৬৩ মৃত্যু ৫ আগস্ট, ১৯৪৩) এক ক্ষণজন্মা কর্মসাধক।

উপমহাদেশের শিক্ষাচিন্তা, রাজনৈতিক দর্শন, বহুমাত্রিক সমাজসেবার বিচিত্র অভিজ্ঞতালব্ধ এ মানুষটি আমাদের সমাজে বর্তমান প্রজন্মের কাছে প্রায় অপরিচিত।তাঁর শিক্ষাদর্শন, কর্মভাবনা রাজনৈতিক চিন্তা সমকালীন ভারতবর্ষ বিশেষত বাংলা বিহার উড়িষ্যায় এক যুগান্তকারী অধ্যায়ের সূচনা করে।

শিক্ষাবিদ আবদুল করিমের জন্ম তখনকার সিলেট শহরের নিকটবর্তী পাঠানটুলা মহল্লায়।তাঁর বাবার নাম মোহাম্মদ নাদির।১৮৭০সালে আবদুল করিম চৌহাট্টার রাসবিহারী দত্ত স্কুলে কিছুদিন অধ্যয়ন করেন।১৮৮১সালে সিলেট গভর্নমেন্ট স্কুল থেকে এনট্রান্স পাস করে কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজে ভর্তি হন এবং সেখান থেকে ১৮৮৬ সালে ইংরেজি বিষয়ে অনার্সসহ বি এ পাস করেন।

অনেকের ধারণা, তিনি বোধহয় মাদ্রাসা শিক্ষায় একজন আলেম।তাঁর নামের পূর্বে মৌলবি শব্দ যুক্ত থাকায় এ ধারণা অমূলক নয়।কিন্তু প্রকৃতপক্ষ তিনি ছিলেন আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত উদারনৈতিক মানুষ।

১৮৮৬ থেকে ১৯১৪ সাল পর্যন্ত তিনি বঙ্গদেশে প্রথমত স্কুল শিক্ষক তৎপর অল্প কিছুকাল সহকারী স্কুল ইনস্পেকটর এবং পরবর্তী সময়ে স্থায়ীভাবে স্কুল ইনস্পেক্টর পদে উন্নীত হয়ে সুখ্যাতি অর্জন করেন।তিনি ইংরেজি, বাংলা, উর্দু ও হিন্দিতে অনেক গ্রন্থ প্রণয়ন করেন।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সঙ্গে তাঁর নিবিড় সম্পর্ক ছিল।১৯১৯ সালে রবীন্দ্রনাথ সিলেট এলে আবদুল করিম চাঁদনিঘাট থেকে খ্রিস্টান মিশন পর্যন্ত কবির সহযাত্রী ছিলেন এবং অনুষ্ঠানের এক অধিবেশনের সভাপতি ছিলেন।

কৃতী এই শিক্ষাবিদ কলকাতায়ই বাকি জীবন অতিবাহিত করেন।ফলে, সিলেট তথা পূর্ববাংলা তথা বর্তমান বাংলাদেশ তাঁকে যেমন জানে না, তাঁর অমর কীর্তি সম্পর্কেও অনেকের ধারণা সীমিত।এই মহান ব্যক্তিত্বের জীবনকর্ম নিয়ে প্রথম বাংলাদেশে গ্রন্থ প্রকাশের উদ্যোগ নেয় মদনমোহন কলেজ সাহিত্যপরিষদ।মো.আলি আজম লাইফ অব মৌলবি আবদুল করিম নামে একখানা ইংরেজি গ্রন্থ ১৯৩৯ সালে কলকাতা থেকে প্রণয়ন করে প্রকাশ করেন।উল্লেখ্য যে, আলি আজম, আবদুল করিমের ব্যক্তিগত সহকারী ছিলেন বলে লেখক আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গে আলাপচারিতায় জানা যায়।আজম একজন পেশাদার সাংবাদিকও ছিলেন।আবদুল করিম অবসর গ্রহণের পর রাজনীতিতে যুক্ত হন।তিনি সেন্ট্রাল কাউন্সিল এবং লেজিসলেটিভ কাউন্সিলের সভ্য ছিলেন। বহুমাত্রিক গুণের অধিকারী এই মানুষের জীবন ও কর্ম নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেবার লক্ষ্যে মদনমোহন কলেজ সাহত্যপরিষদ সাংবাদিক আজমের ওই বইটি বাংলায় অনূদিত করে প্রকাশের উদ্যোগ নেয়।আমার অত্যন্ত সুহৃদ অনুবাদক মিহিরকান্তি চৌধুরী সাগ্রহে এর অনুবাদকর্ম সম্পন্ন করেন এবং ‘লাইফ অব মৌলবি আবদুল করিম ‘ (২০১৮) নামে তা প্রকাশিত হয়।যদিও পাঠসূত্র লেখার দায়িত্ব আমার ওপরই বর্তায়।

আজ ২০আগস্ট, ২০২১। শিক্ষাবিদ আবদুল করিমের ১৫৮ তম বার্ষিকী এবং ১৫৯ তম জন্মদিন।তাঁর মতো মহান ব্যক্তিত্বের জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিক অনুষ্ঠান জাতীয় স্বার্থে পালিত হলে নতুন প্রজন্ম অতীত সম্পর্কে জানার সুযোগ পাবে।

 

লেখক : ডক্টর আবুল ফতেহ ফাত্তাহ, সাবেক অধ্যক্ষ- মদনমোহন সরকারি কলেজ, সিলেট।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।