জগন্নাথপুর টাইমসবুধবার , ৪ অক্টোবর ২০২৩, ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. খেলা
  3. গ্রেট ব্রিটেন
  4. ধর্ম
  5. প্রবাসীর কথা
  6. বাংলাদেশ
  7. বিনোদন
  8. বিশ্ব
  9. মতামত
  10. রাজনীতি
  11. ল এন্ড ইমিগ্রেশন
  12. লিড নিউজ
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সাহিত্য
  15. সিলেট বিভাগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ক্ষমতাচ্যুত হলেন যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থি

Jagannathpur Times BD
অক্টোবর ৪, ২০২৩ ৫:০০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মুহাম্মদ সাজিদুর রহমান,

অনলাইন ডেস্ক :

ঐতিহাসিক নাটকীয়তায় মধ্য দিয়ে ক্ষমতাচ্যুত হলেন যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থি। ২৩৪ বছরের ইতিহাসে প্রথম এমন লজ্জাজনক পরণতির শিকার হলেন কেভিন ম্যাকার্থি।

শনিবার ‘শাটডাউন বিল’ পাশ বিতর্ক ঘিরে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়া ‘হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে’ সোমবার স্পিকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনেন ফ্লোরিডার ডানপন্থি আইনপ্রণেতা ম্যাট গেটজ। পরদিন মঙ্গলবারই ভোটাভুটি হয়।

ভোটের অবিশ্বাস্য ফলাফলে (২১৬-২০৮) দেখা গেল-স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থিতে আসলেই আস্থা হারিয়ে ফেলেছেন নিম্নকক্ষের আইনপ্রণেতারা। এখন নতুন স্পিকার কে হবেন তা নিয়েও রয়েছে ধোঁয়াশা। যুক্তরাষ্ট্রের ‘হাউজ অব স্পিকার’র পদটি কতটা গুরত্বপূর্ণ?

কি দায়িত্ব পালন করেন নিম্নকক্ষের প্রতিনিধি স্পিকার? বুধবার এক প্রতিবেদনে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেছে বিবিসি।

যুক্তরাষ্ট্রের ঐতিহ্য অনুসারে, দেশটির স্পিকার হাউজের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের প্রধান। অর্থাৎ সংখ্যাগরিষ্ঠ দল দ্বারা সমর্থিত আইন পাশ করার জন্য স্পিকার দায়ী। দেশটিতে হাউজ স্পিকারের অবস্থান সবচেয়ে শক্তিশালী।

যুক্তরাষ্ট্রের ‘হাউজ অব স্পিকার’ কংগ্রেসে নিম্নকক্ষকে তত্ত্বাবধায়ন করেন। এমনকি চেম্বারের কার্যাবলীর ওপর তার প্রায় সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকে। পাশাপাশি স্পিকার কংগ্রেসের সদস্য হিসাবে হাউজ অফ রিপ্রেজেন্টেটিভের প্রিসাইডিং অফিসার এবং হাউজে সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজনৈতিক দলের নেতা হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

এই দায়িত্বগুলোর মধ্যে রয়েছে আইন প্রণয়ন, প্রশাসনিক দায়িত্ব যেমন হাউজ চেম্বারের মধ্যে শৃঙ্খলা বজায় রাখা এবং অন্যান্য কাজ যেমন বিশেষ কমিটি নিয়োগ করা। হাউজের প্রিসাইডিং অফিসার হিসাবে স্পিকারের দায়িত্বের মধ্যে রয়েছে সদস্যদের শপথ করানো। তাছাড়াও, স্পিকার নিয়মিত বিশেষ, বাছাই অথবা সম্মেলন কমিটিগুলোর সদস্য এবং চেয়ারপারসন নিয়োগ করেন।

স্পিকার নির্ধারণ করেন যে কোন আইনটি প্রতিটি কমিটিকে বরাদ্দ করা হয়েছে এবং কোন আইনটি ভোটের জন্য হাউজে পৌঁছেছে। তদ্ব্যতীত, স্পিকার পার্টির নেতা, কমিটির চেয়ারপারসন, রাষ্ট্রপতি এবং সিনেটের সঙ্গে পরামর্শ করে হাউজের আইনসভার এজেন্ডা নির্ধারণ করেন।

কংগ্রেসের একজন সদস্য হিসাবে, স্পিকার বিতর্কে অংশ নিতে পারেন এবং ভোট দিতে পারেন। স্পিকার সিনেটের সঙ্গে সব যৌথ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন। কেননা এই সরকারি সমাবেশগুলো সাধারণত প্রতিনিধি পরিষদে অনুষ্ঠিত হয়।

সংসদে স্পিকার কেন এত গুরত্বপূর্ণ 

যুক্তরাষ্ট্রে স্পিকারের অবস্থান বেশ শক্ত। বিশেষ কিছু ক্ষমতাও রয়েছে তার। কংগ্রেসের যে কোনো পক্ষপাতমূলক সিদ্ধান্তে স্পিকার মার্কিন প্রেসিডেন্টের এজেন্ডা তৈরি বা ভাঙতে পারেন। প্রেসিডেন্টের বিরোধিতা করে তাদের দলের সবচেয়ে বড় আইন প্রণয়নের উদ্যোগের নেতৃত্ব দিতে পারেন। একজন বুদ্ধিমান স্পিকার প্রণোদনা বা শাস্তি প্রদান করে বিদ্রোহী আইনপ্রণেতাদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।

কেভিন ম্যাকার্থির পদচ্যুতির পর কি হবে?

কেভিন ম্যাকার্থির পদচ্যুতির পর মার্কিন হাউজে নতুন স্পিকারের জন্য ভোট দিতে হবে। ধারণা করা হচ্ছে, নির্বাচনটি আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে পদচ্যুতির পরপরই ম্যাকার্থি মিত্র, রিপাবলিকান প্রতিনিধি প্যাট্রিক ম্যাকহেনরি অস্থায়ীভাবে ভারপ্রাপ্ত স্পিকার নিযুক্ত হন। তবে তিনি খুব সীমিত সময়ের জন্য কাজ করতে পারবেন।

চেম্বারের নিয়ম ও পদ্ধতির নির্দেশিকা অনুসারে ভারপ্রাপ্ত স্পিকারের অস্থায়ী দায়িত্বগুলোও অস্পষ্ট। সূত্র হতে জানা যায়, প্যাট্রিক ম্যাকহেনরি মঙ্গলবার রাতের সম্মেলনের বৈঠক করেছেন। সিদ্ধান্ত হয়েছে হাউজ ১০ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত। এরই মধ্যে একদিন একটি স্পিকার প্রার্থী ফোরাম অনুষ্ঠিত হওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। অতপর ১১ অক্টোম্বর স্থায়ী স্পিকার নির্বাচনের জন্য ভোটের সম্ভাবনা রয়েছে। এবিসি নিউজ।

নতুন স্পিকারের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কারা থাকবেন?

ম্যাকার্থির ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর নতুন স্পিকারের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় উঠে এসেছে বেশ কয়েকটি নাম।

স্টিভ স্কেলাইজ: প্রতিনিধি পরিষদের রিপাবলিকান নেতা স্টিভ স্কেলাইজ। ম্যাকার্থিকে অপসারণের প্রস্তাব উত্থাপনকারী রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা ম্যাট গেটজ বলেছেন, স্পিকার পদে স্কেলাইজকে সমর্থন দেবেন তিনি। স্পিকার হওয়ার ক্ষেত্রে তার ভালোই সম্ভাবনা রয়েছে।
টম ইমার : টম ইমার প্রতিনিধি পরিষদের রিপাবলিকান দলীয়। ২০২২ সালের মধ্যবর্তী নির্বাচনে তিনি প্রতিনিধি পরিষদের রিপাবলিকানদের প্রচারাভিযানে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

জিম জর্ডান: জিম জর্ডান প্রতিনিধি পরিষদের জুডিশিয়ারি কমিটির চেয়ারম্যান। তিনি সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একজন মিত্র হিসাবে পরিচিত। জানুয়ারিতে প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার নির্বাচনের সময় তাকে এই পদে মনোনয়ন দিয়েছিলেন কিছু বিদ্রোহী রিপাবলিকান।

বায়রন ডোনাল্ডস: বায়রন ডোনাল্ডস একজন কট্টরপন্থি রিপাবলিকান। তাকে রিপাবলিকান পার্টির একজন উদীয়মান তারকা হিসাবে বিবেচনা করা হয়।

প্যাট্রিক ম্যাকহেনরি: প্যাট্রিক ম্যাকহেনরি প্রতিনিধি পরিষদের ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস কমিটির চেয়ারম্যান। তিনি ম্যাকার্থির একজন মিত্র। ম্যাকার্থিকে স্পিকারের পদ থেকে অপসারণের লক্ষ্যে ভোটাভুটি হওয়ার আগে তার সমর্থনে কথা বলেছিলেন ম্যাকহেনরি।

ডোনাল্ড ট্রাম্প: ঐতিহাসিকভাবে এখন পর্যন্ত প্রতিনিধি পরিষদ তার সদস্যদের মধ্য থেকে একজনকে স্পিকার নির্বাচন করে এসেছে। তবে মার্কিন সংবিধানে এমন কোনো বিধান নেই যে স্পিকারকে প্রতিনিধি পরিষদের নির্বাচিত সদস্য হতে হবে।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কিছু রিপাবলিকান মিত্র এমন কথা বলছেন, স্পিকার হিসাবে তিনি দায়িত্ব পালন করতে পারেন। তবে ট্রাম্প আগেই ঘোষণা দিয়েছেন, তিনি এই পদের ব্যাপারে আগ্রহী নন।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।