জগন্নাথপুর টাইমসশনিবার , ৫ আগস্ট ২০২৩, ৮ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. খেলা
  3. গ্রেট ব্রিটেন
  4. ধর্ম
  5. প্রবাসীর কথা
  6. বাংলাদেশ
  7. বিনোদন
  8. বিশ্ব
  9. মতামত
  10. রাজনীতি
  11. ল এন্ড ইমিগ্রেশন
  12. লিড নিউজ
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সাহিত্য
  15. সিলেট বিভাগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বৃটিশ প্রধানমন্ত্রীর ভবনটিকে কালো কাপড়ে ঢেকে দিলেন বিক্ষোভকারীরা

Jagannathpur Times BD
আগস্ট ৫, ২০২৩ ৮:৪০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মুহাম্মদ সাজিদুর রহমান  :

মত প্রকাশের স্বাধীনতা, আন্দোলন বা বিক্ষোভ, যাই বলুন না কেন ব্রিটেনে তা সম্ভব । ব্রিটেনে সম্প্রতি এমনই একটি ঘটনার সৃস্টি হয়েছে ।

গ্রিনপিসের পরিবেশ কর্মীরা বৃহস্পতিবার বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের ব্যক্তিগত ভবনটিকে কালো কাপড়ে ঢেকে দিলেন। সুনাকের এই বাসভবনটি ইংল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় জেলা ইয়র্কশায়ারে অবস্থিত। তেল খননের বিষয়ে সরকারের নীতির সমালোচনা করে ভবনের ছাদ থেকে বিশাল কালো শীট ঝুলিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা।

বৃহস্পতিবার (৩ অগাস্ট ২০২৩) সকাল ৯ টা নাগাদ গ্রিনপিস ইউকের ওয়েবসাইটে পোস্ট করা হয় এই ছবি। তারপরও অন্তত ২ ঘণ্টা সেখানে অবস্থান করে পরিবেশ কর্মীরা। পরে ইয়র্কশায়ার পুলিশ এসে তাদের সরিয়ে দেয়।

মোট পাঁচজন বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার ক্যালিফোর্নিয়ায় ছুটি কাটাতে বৃটেন ছেড়েছেন সুনাক। পরিবেশগত বিষয়ে সুনাকের রেকর্ড পরীক্ষা-নিরীক্ষার আওতায় এসেছে যখন তিনি বলেছিলেন যে তিনি জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য একটি “আনুপাতিক পদ্ধতি” গ্রহণ করবেন যা ভোক্তাদের বিল কম রাখার প্রয়োজনের সাথে চাহিদার ভারসাম্য বজায় রাখবে।

উত্তরসাগরে তেল ও গ্যাস উত্তোলনের জন্য শতাধিক লাইসেন্সে ছাড়পত্র দিয়েছে সুনাক প্রশাসন।

তাদের দাবি, এর ফলে বৃটেনে ২ লক্ষ চাকরি রক্ষা পাবে। পাশাপাশি রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পরিস্থিতিতেও জ্বালানি নিরাপত্তা সুরক্ষিত থাকবে। কিন্তু পরিবেশকর্মীদের দাবি, বিশ্ব উষ্ণায়নের জেরে বরফ গলে আটলান্টিক মহাসাগরের স্রোতের স্বাভাবিক প্রবাহ নষ্ট হচ্ছে, সেখানে সুনাকের এই সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না। জলবায়ু প্রতিবাদকারীদের কাছে বিষয়টি ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।

গ্রিনপিস ইউকে অনলাইনে পোস্ট করা ছবিগুলিতে দেখা গেছে বিক্ষোভকারীদের ব্যানারে লেখা ছিল “ঋষি সুনাক – তেলের লাভ চাই না আমাদের ভবিষ্যত?” বিক্ষোভকারীদের দাবি তাঁরা বার্তাটি সরাসরি সুনাকের কাছে পৌঁছাতে চান কারণ তিনি নতুন তেল ও গ্যাস উত্তোলনের লাইসেন্সে স্বাক্ষর করেছেন।

গ্রিনপিস বলেছে যে তারা ইকুইনরস (EQNR.OL) রোজব্যাঙ্ক তেলক্ষেত্রের একটি প্রস্তাবিত উন্নয়নের বিরুদ্ধেও প্রতিবাদ করছে, যা একটি চূড়ান্ত বিনিয়োগ সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছে। বৃটেন ২০৫০ সালের মধ্যে নেট শূন্য কার্বন নির্গমন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে এবং দ্রুত তার পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির ক্ষমতা বৃদ্ধির দিকে জোর দিয়েছে। কিন্তু ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন জ্বালানি নিরাপত্তায় আলোড়ন তুলেছে, সোমবার বৃটিশ সরকার আরও শক্তি সংগ্রহের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে উত্তর সাগরের তেল ও গ্যাস উত্তোলনের জন্য শত শত লাইসেন্স দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। এটি ডিসেম্বরে কয়েক দশকের মধ্যে তার প্রথম গভীর কয়লা খনির অনুমোদন দিয়েছে। সুনাকের কনসারভেটিভ পার্টির কেউ কেউ পরিবেশগত প্রতিশ্রুতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পশ্চাদপসরণ নিয়ে শঙ্কিত। যদিও সুনাকের দাবি, কার্বন নিঃসরণ কমানোর ক্ষেত্রে বৃটেন অন্যান্য বড় দেশের তুলনায় ভালো কাজ করেছে। সূত্র: রয়টার্স

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।